হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামাঞ্চলের ঢেঁকি

সাইফুল ইসলাম, বাউফল প্রতিনিধি
আপডেটঃ ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৮:২৯ 8 ভিউ
সাইফুল ইসলাম, বাউফল প্রতিনিধি
আপডেটঃ ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৮:২৯ 8 ভিউ
Link Copied!

হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামাঞ্চলের ঢেঁকি। আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী ঢেঁকি আগের মত আর চোঁখে পড়ে না। কালের বিবর্তনে ঢেঁকি এখন যেন শুধু ঐতিহ্যের স্মৃতি বহন করেছে। এক সময় মানুষ ঢেঁকিতে ধান ও চাল ভেঙ্গে চিড়া-আটা তৈরী করে জীবিকা নির্বাহ করতো। ঢেঁকির ধুপধাপ শব্দে মুখরিত ছিল বাংলার জনপদ। কিন্তু এখন ঢেঁকির সেই ধুপধাপ শব্দ আর শোনা যায় না। বাউফল উপজেলার কয়েকজন চল্লিশার্ধো নারীর সাথে আলাপ চারিতায় জানা যায়, শীতের অগ্রহায়ণ-পৌষ-মাঘ মাসে কৃষক ধান কাটার সঙ্গে সঙ্গে কৃষাণীদের ঘরে ধান থেকে নতুন চাল বা চাল গুঁড়া করার ধুম পড়ে যেতো। আর সে চাল দিয়ে পিঠা, পুলি, পায়েশ তৈরী করা হতো। এছাড়াও নবান্ন উৎসব, বিয়ে, ঈদ ও পূজায় ঢেঁকিতে ধান ভাঙ্গে আটা তৈরীর করে থাকেন গ্রাম্যবধূরা। এখন বিভিন্ন ধরনের যন্ত্র আবিস্কারের সাথে সাথে সে সব পুরানো

গোসিংগা গ্রামে চারবরু বেগম ৪৫ আক্ষেপ করে বলেন, এক সময় ঢেঁকি ছিল গ্রাম জনপদে চাল ও চালের গুঁড়া-আটা তৈরীর একমাত্র মাধ্যম। বধূরা ঢেঁকিতে কাজ করতো রাত থেকে ভোর পর্যন্ত।
সরজমিনে বাউফল উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রাম গুলোতে ঘুড়ে ঢেঁকির দেখা মেলেনি। তবে গ্রামের অনেকের মুখে শোনা গেছে আগে প্রায় সকলের বাড়িতে ঢেঁকি ছিলো এখন আর নেই। ঢেঁকি সম্পর্কে জানতে চাইলে এক প্রবীন বৃদ্ধ জানান, আগে তাদের বাড়িতে ঢেঁকি ছিল। সেই ঢেঁকি ছাটা চাল ও চালের পিঠার গন্ধ এখন আর নেই। সেই পিঠার স্বাদ ও গন্ধ তার মনে পড়ে। আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে গ্রাম বাংলায় ঢেঁকির ব্যবহার কমে গেছে। তবে ঢেঁকি আমাদের একটি প্রাচীন ঐতিহ্য।

চরমিয়াজান উন্নয়ন কর্মী ফেরদাউস বেগম বলেন, আধুনিকতার ছোঁয়ায় কোনো জায়গায় ঢেঁকির শব্দ আর নেই। ফলে বিলুপ্তি প্রায় গ্রামীণ জনপদের ঐতিহ্য কাঠের তৈরী ঢেঁকি। প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে যেখানে বিদ্যুৎ নেই, সেখানেও ঢেঁকির ব্যবহার কমেছে। তবুও গ্রামীণ ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে কেউ কেউ বাড়ীতে ঢেঁকি রাখলেও তারা ব্যবহার করছে না। চাল-ধান-ডাল ভাঙ্গার মেশিন আবিস্কারের পূর্বে ঢেঁকি শিল্পের বেশ কদর ছিল। তেল বা বিদ্যুৎ চালিত মেশিন দিয়ে ধান ও চাল ভাঙ্গার কারনে ঢেঁকি আজ কদরহীন।
ঢেঁকি ছাঁটা আউশ চালের পান্তা ভাত পুষ্টিমান ও খেতে খুব স্বাদ লাগতো বলে জানিয়েছে গ্রামের কয়েকজন প্রবীন। বর্তমান প্রজন্ম সে স্বাদ থেকে বঞ্চিত। প্রাচীনকালে ঢেঁকির ব্যবহার বেশী হলেও বর্তমানে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে গ্রাম বাংলার ঢেঁকি আজ বিলুপ্তির পথে। দিন দিন ঢেঁকি শিল্প বিলুপ্ত হলেও এ শিল্পকে সংরক্ষণের কোন উদ্যোগ নেই।

বিজ্ঞাপন

শীর্ষ সংবাদ:
ঠাকুরগাঁওয়ে বাবাকে খুন করে প্রকৌশলী ছেলের থানায় আত্মসমর্পণ শ্রীনগরে প্রশাসনকে বৃদ্ধা আঙ্গুলি দেখিয়ে পুনরায় চলছে অবৈধ ড্রেজার বাণিজ্য ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা তিতাসে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর এপিএস মতিন খানের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন কুমিল্লার নতুন সিভিল সার্জন ডাঃ নাছিমা আকতারের যোগদান রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে প্রায় ৩০ বিঘার খড় ভস্মিভূত অর্ধলক্ষ টাকার ক্ষতি বদলগাছীতে ইরি-বোরো ধান চাষে ব্যস্ত চাষিরা । বাউফলে ৭ কোটি টাকা ব্যায়ে নবনির্মিত ভবনটি হস্তান্তরের অপেক্ষায় দিন গুনেছে পাকিস্তান গিয়েও বিপিএল খেলতে ফেরত আসছেন ইমাদ-আমির ফ্লাইওভার থেকে দুই সপ্তাহের মধ্যে পোস্টার অপসারণের নির্দেশ বদলগাছীতে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে যুবকের আত্মহত্যা জাহানারা জামানের ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ রাজশাহীর বিভিন্ন এলাকায় দেখা মিলেছে আমের ভরপুর স্বর্ণালী মুকুলের আভা সরিষার জাব পোকা, এফিড ঈশ্বরদীর রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে ঘিরে বাংলাদেশ বিশ্বভাতৃত্বের মিলন স্থল পরিণত হয়েছে  প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল হওয়ায় সিডিসির নেত্রীবৃন্দকে ফুলেল শুভেচ্ছায় মেয়র লিটন রাজশাহীতে ব্যাংক কর্মকর্তাকে অপহরণের চেষ্টা, গ্রেপ্তার ২ ৪০০ কোটির অভিজাত ক্লাবে ‘পাঠান’ পাঠান সিনেমার আসল আয় জানালেন শাহরুখ খান রাজস্ব ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
%d bloggers like this: